Header Border

ঢাকা, শনিবার, ১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল) ২৮°সে
শিরোনামঃ
লালমাইয়ে রমরমা জুয়ার আসর চলছে মাদক বিক্রি ও পতিতাবৃত্তি! লালমাইয়ে বাড়ছে বিয়ে বাড়ী হিজড়াদের চাঁদাবাজি! নেই প্রতিকার! (ভিডিও) ডাকাতিয়া নদী গর্ভে বিলীন হওয়ার পথে রাস্তা ও শতবর্ষী মন্দির। লালমাইয়ে বসতঘর পুড়ে ছাই!মাথা গোঁজার ঠাই হারিয়ে অসহায় কাঠমিস্ত্রি! ছাত্ররাজনীতি এবং করনীয়-আবদুল বাতেন। লালমাই থানা’র নতুন ওসি মো: আইয়ূবকে লালমাই প্রেস ক্লাব’র ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময় ধর্মীয় সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠাই আওয়ামী লীগের বড় অর্জন : মন্ত্রী তাজুল ইসলাম লালমাই উপজেলায় আবারো শিশু ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার। দেশটাকে এগিয়ে নিতে হলে কিছু জায়গা রাজনীতির উর্ধ্বে রাখতে হবে-আবদুল বাতেন। লালমাই প্রেস ক্লাব নেতৃবৃন্দ পূজা মন্ডপ পরিদর্শন।

কুমিল্লায় অশ্লীল ওয়াজ রেকর্ড করায় সাংবাদিকের ক্যামেরা ছিনতাই।

                                     
           

কুমিল্লা নাঙ্গলকোট উপজেলার রায়কোট ইউনিয়নের যজ্ঞশাল গ্রামে রফিক উল্লাহ আফসারীর অশ্লীল ওয়াজ রেকর্ড করায় সাংবাদিকের ক্যামেরা ছিনতাই করার ঘটনা ঘটেছে। কোন সাংবাদিক বা মিডিয়া কর্মী থাকলে আমি ওয়াজ করবো না। কোন মোবাইলে আমার ওয়াজ রেকর্ড করলে আমি ওয়াজ বন্ধ করে আমি মাহফিল শেষ করে দিব। কোন ক্যামেরায় আমার ওয়াজ ধারন করলে ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়া হবে। বাস্তবতাও প্রমান হলো, । গত (২০ ফেব্রুয়ারী ১৯) বুধবার রাত ৮টা ৩০ মিনিটের সময় এঘটনা ঘটে।

এলাবাসীর উদ্যোগে আয়োজিত ওয়াজ মাহফিলের প্রধান বক্তা মুফতি মাওলানা রফিক উল্লাহ আফসারীর নির্দেশে মেঘনা টিভির এক সাংবাদিকের কেমেরায় ওয়াজ রেকর্ড করার সময় তার ক্যামেরা ছিনিয়ে নিলেন।

মোবাইলে যেসব শ্রোতা ওয়াজ রেকর্ড করছেন প্রথমে তাদের মোবাইল গুলো বন্ধ করার হুমকি দেন, রেহাই পাননি মাহফিল আয়োজক কমিটির ভাড়া করা ক্যামেরাও। তার নিজের সহকারীর নিয়োগ দিয়েছেন ভিডিও ধারন করা ও মোবাইল রিসিভ করার জন্য। ১ থেকে দেড় ঘন্টা ওয়াজ করে (দাবি করে) নেন ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা। শ্রোতারা মোবাইলে ওয়াজ রেকর্ড করে বাসায় নিতে পারবে না। ওয়াজ শুনতে হলে তার নিজস্ব টেলিভিশন রয়েছে (টিভির নাম অজ্ঞাত)। 

আয়োজক কমিটির অনুমতি নিয়ে ওই সাংবাদিক ওয়াজ মাহফিল রেকর্ড করার অনুমতি পেলেও রেহাই পাননি কুমিল্লার জেলা প্রতিনিধি মেঘনা টিভির সাংবাদিক ও রিপোর্টার। মাহফিল শুরুর ১০ মিনিটের মাথায় ছিনিয়ে নেয়া হয় এই টিভি সাংবাদিকের ক্যামেরা। ছিনিয়ে নেয়া হয় অনেকের মোবাইল। 
হাল ছাড়েননি সেই সাংবাদিক রেকর্ডিংয়ের কাজ, সংগ্রহ করলেন পাশে বসা এক শ্রোতার মোবাইলে গোপনে ধারন করা ভিডিও। পুরো ১ঘন্টা ২০ মিনিটে কি করলেন মাহফিলে ? শ্রোতাদের মন যোগাতে বেপাসা আলোচনা, অসামাজিক কথা বার্তা, অশোভ আচরন, যুবকদের উস্কানীমুলক কথা আলোচনা। 

গেয়েছেন কলিজার ভিতর বাইন্দা রাইখুম তোমারে ও ননাইরে……… তুমি কোন বা দেশে রইলারে দয়াল চাঁন, শ্রোতাদের মন যোগাতে এসব গানের উদাহরন দিয়ে গানের শোর ঠিক রেখে নতুন করে কথা যোগ করেন। মাহফিল শেষে এক ভক্ত বলেন, তার ওয়াজ নাকি এডিড করা হয়, তাই তিনি সবাইকে ভিডিও করতে দেন না। দর্শকবৃন্দ আপনাদের কাছে প্রশ্ন লেখা এডিট করা যায়, ছবি এডিট করা যায়, ভিডিও কি এডিট করা যায় ? ভিডি কার্ট-কার্ট করে আগে পিছে নেয়া যায়, ভিডিওতে কি ভয়েস পরিবর্তন বা ছবি পরিবর্তন করা যায়? প্রশ্ন আপনাদের কাছে ?

কেমেরা ছিনিয়ে নেয়ার বিষয়ে পরের দিন সকালে ওই হজুরের সাথে মোবাইলে ছিনতাইয়ের বিষয়ে কথা বলতে চাইলে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে তিনি মোবাইলটি বন্ধ করে দেন।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও খবর

সম্পাদকঃ নাছির আহমেদ

০১৬২৬৩৭৯৯২৭

সহ-সম্পাদকঃ আলা উদ্দিন

Info.alauddin5330@gmail.com